আমি যেভাবে কোভিড -১৯ মহামারীর মাঝে ইতিবাচক মনোভাব ধরে রেখেছি

প্রায় আটমাস আমরা কোভিড–১৯ মোকাবিলা করছি। আমাদের জীবনযাত্রা বদলে দিয়েছে করোনা এই আটমাসে আমার জীবনে নানামুখী নতুন অভিজ্ঞতার মাঝে গিয়েছে। ১৭ই মার্চ ক্যাম্পাস বন্ধ হয়ে যায়। এর কিছুদিন পর কর্তৃপক্ষ থেকে লকডাউনের ঘোষণা আসে। আমি যে মেসে থাকতাম একে একে সবাই বাসা ছেড়ে চলে যায় গ্রামে। আমি একা হয়ে পড়ি। হঠাৎ একদিন কাজের আন্টি না […]

আমি যেভাবে কোভিড-১৯ মহামারীর মাঝে ইতিবাচক মনোভাব ধরে রাখছি

অনেককেই ফেসবুকে স্টোরি দিতে দেখতাম বছরে দুইবার ছয়মাসের ছুটি চায় তারা। করোনা নামের এই ছোট্ট ভাইরাস কতসহজেই সেই অসম্ভব উইশটিকে সম্ভব করে দিল, নিজে বিশ্বভ্রমণ করে, সবাইকে আটকে দিলো ঘরের মাঝেই।  ছুটি পেয়ে তাই সবাই নাচতে নাচতেই চলে এসেছিলাম ঘরে। এরপর যখন আস্তে আস্তে কোভিড–১৯ এর ভয়াবহতা দেখতে শুরু করলো মানুষ? অচেনা মানুষের আক্রান্ত হওয়ার[…..]

” আমি যেভাবে কোয়ারেন্টাইনের মাঝে নিজেকে মানসিকভাবে স্থিতিশীল রাখছি “

“কোয়ারেন্টাইন“,,  ল্যাটিন থেকে আসা শব্দটির পরিচয় বেশিরভাগ মানুষের কাছেই ২০২০ সালের প্রথম প্রহর থেকেই যেন খুবই পরিচিত হয়ে উঠেছে। সভ্যতার প্রত্যেক প্রারম্ভে বা কোনো এক অভাবিত মুহুর্তে “প্রতিবন্ধকতা” নামক শব্দটির আনাগোনা বেশ হয়েছে। যার পরিণাম ছিল সকলেরই কাছে অকল্পনীয়। যার অকাল স্মৃতি যে কেউই কাটাতে চাইবে খুবই তাড়াতাড়ি। তেমনি বর্তমান শতাব্দীর এক প্রতিবন্ধকতার হাহাকার আজও[…..]

আমি যেভাবে কোরেন্টাইনের মাঝে নিজেকে মানসিকভাবে স্থিতিশীল রাখছি

আমি চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক কলেজ এর সপ্তক শ্রেণীর ছাত্র।দিনটিবছিল মার্চের ১৬ তারিখ। আগামীকাল মুজিববর্ষ।তাই কিছুটা রিল্যাক্স ছিলাম। কিন্তু বাসায় এসে আম্মু ফোন করে বলল শুধু কাল নয়, ১৫ দিনের জন্য লকডাউন ঘোষিত হয়েছে।আমার বাবা- মা দু’জনেই চাকরী করেন৷ স্কুল থেকে একা একাল আসতে হয়। ১৫ দিন ছুটি প্রথমে ভালো লাগল। তখনো ভাবিনি বাসার বাইরে না[…..]

আমি যেভাবে কোভিড – ১৯ মহামারীর মাঝে ইতিবাচক মনোভাব ধরে রেখেছি

ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়া, জন্ম, মৃত্যু -এই শব্দগুলো কানে আসলেই আমার মধ্যে  আতঙ্ক বা ভীতির সৃষ্টি হয়।   কোভিড-১৯ এর প্রভাবে বিশ্ব পরিস্থিতি সম্পর্কে আমরা সবাই এখন অবগত এবং বাংলাদেশের পরিস্থিতিও বেশ ঝুঁকির মুখে। আক্রান্ত হওয়া বা না হওয়া নিয়ে সাধারণভাবে বলতে গেলে একধরণের মানসিক চাপ সকলের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে।      এরকম পরিস্থিতিকে আমি যেভাবে ইতিবাচক মনোভাব[…..]

আমি যেভাবে কোভিড – ১৯ মহামারীর মাঝে ইতিবাচক মনোভাব ধরে রেখেছি

প্রায় অর্ধেক বছর কাটিয়ে দিলাম বাসায় বসে থেকে। এমনটা কি কেউ কখনও নিজের ফ্যান্টাসি হিসেবেও কল্পনায় চেয়েছিলো? চিরচেনা ব্যস্ততা নেই, ক্লাসে যাওয়ার তাড়া নেই, ক্যাম্পাসের পরিচিত মুখগুলোর সাথে দেখা সাক্ষাত হবে না, এমনকি ঘর থেকে এক পা বাইরে ফেলার আগে অনেক সতর্কতা মেনে তারপর যেতে হবে…এমনটা আমরা আসলেই কেউ দুঃস্বপ্নেও ভাবিনি।    কিন্তু যখনই কাউকে[…..]

করোনায় আমার জীবন

মৃত্যু মিছিল রোজ পথে হেঁটে যায়         বেঁচে থাকাটাই আজ হয়ে গেছে দায়         তবুও তো আজ বাঁচবার ময়দানে        পাখি ডেকে যায় শিস দিয়ে …”   কল্পনার বাইরের এক অদৃশ্য শত্রুর জন্য পুরো পৃথিবী আজ থমকে , চারদিকে শুধুই নিস্তব্ধতার হাতছানি । যান থাকলেও তার বাহক নেই , রাস্তা থাকলেও নেই তার পথিক ।[…..]

বন্দিত্ব যখন শাপে বর!

 ২০১৮ সালে এসএসসি পরীক্ষার পরে কেউ যদি জিজ্ঞেস করত যে কোন ক্লাসে পড়ি, তাহলে বেশ দোটানায় পড়ে যেতাম। বলা যায় ক্লাস টেন, না বলা যায় কলেজ। মহা মুশকিল। তাই বলতাম– আপাতত বেওয়ারিশ। এখনকার অবস্থাও অনেকটা সেরকম। এইচএসসি–২০২০ ব্যাচ হিসেবে পরীক্ষা ঝুলে পড়ায় আদৌ ২০২০ ব্যাচ থাকবাে নাকি তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়ে গেছি। না পারছি পরীক্ষা[…..]

আমি যেভাবে কোভিড-১৯ মহামারীর মাঝে ইতিবাচক মনোভাব ধরে রাখছি

বলা হয় সৃষ্টিকর্তা যখন কোন কিছু ঘটাবেন তখন   তার পিছনে কোন না কোন ভালো কারণ তিনি তাঁর সৃষ্টির জন্য অবশ্যই রাখেন। কোন সৃষ্টির জন্য তা হয়তো অভিশাপ কোন সৃষ্টির জন্য তা আশীর্বাদ তুল্য। কথাটি খুব সাধারণ মনে হয়। কিন্তু অসাধারণতার প্রকাশ তখনই হয় যখন কথাটির গভীরে যাওয়া যায়। আমরা বলি ‘Deep meaning’. বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯[…..]

আমি কোয়ারেন্টাইনের মাঝে নিজেকে মানসিকভাবে যেভাবে স্থিতিশীল রাখছি

‌ করােনা‌ ‌বর্তমান‌ ‌সময়ের‌ ‌এক‌ ‌ভয়ানক‌ ‌ও‌ ‌ভয়াবহ‌ ‌আতঙ্কের‌ ‌নাম‌-‌যার‌ ‌ফলে‌ ‌সৃষ্ট‌ ‌ অস্থিতিশীল‌ ‌পরিস্থিতি‌ ‌শুধু‌ ‌একটি‌ ‌দেশের‌ ‌দেশের‌ ‌গন্ডি‌ ‌বা‌ ‌সীমানা‌ ‌পর্যন্ত‌ ‌সীমাবদ্ধ‌ ‌না‌ ‌ হয়ে‌ ‌পুরাে‌ ‌বিশ্বেই‌ ‌এক‌ ‌অস্থিতিশীল‌ ‌অবস্থার‌ ‌সৃষ্টি‌ ‌করেছে‌।‌চতুর্দিকের‌ ‌এই‌ ‌ অস্থিতিশীল‌ ‌পরিবেশের‌ ‌মধ্যেও‌ ‌এই‌ ‌ব্যধি‌ ‌থেকে‌ ‌উত্তোরণের‌ ‌প্রথম‌ ‌চেষ্টা‌ ‌হয়‌।‌ ‌ নিজেকে‌ ‌মানসিকভাবে‌ ‌স্থির‌ ‌রাখা‌।‌এত‌ ‌বাধা‌-‌বিপত্তির‌ ‌মাঝে‌ ‌থেকেও‌ ‌নিজের‌[…..]