মহামারীতে বিষন্নতা নয় নিজেকে সময় দিন, প্রাণোচ্ছল থাকুন

আত্মহত্যা, বিষন্নতা নিয়ে কথা বললে সবাই বলে, মনে ঈমান নাই তাই এসব বলে” “এত ভালো রেজাল্ট,তোমার আবার কিসের ডিপ্রেশন” “চেষ্টা না করলে তো হেরে যাবাই, এখানে মন খারাপের কি আছে কত মানুষ মারা যাচ্ছে, সেদিকে খেয়াল নেই আবার মনের দিকে নজর! ফেসবুক ফ্রেন্ড দের নানা ক্রিয়েটিভিটি,রাতের বেলা হাহাকার যেন হুহু করে উঠে মনের মাঝে।

 

শত ব্যাস্ততার মাঝে থেকে হঠাৎ দীর্ঘ ছুটি,তার উপর মৃত্যুর ঢল, আমরা দিন দিন নিমজ্জিত হচ্ছি অন্ধকারে। এর থেকে পরিত্রান পাওয়ার জন্য নিজেকে সময় দেয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ । যে যার স্রষ্টার ইবাদতে নিজেদের নিমজ্জিত রাখার সাথে সাথে কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করা উচিত। নিজেকে নিজে প্রশ্ন করতে হবে।নিজের সমস্যা গুলো আয়নার সামনে বসে বলতে হবে, একা একা,কান্না আসলে কাঁদতে হবে,যেসব কটু কথা মনকে বিষিয়ে তোলে সেগুলো একটি কাগজে লিখুন,তারপর ছিড়ে ফেলবেন,দেখবেন ভালো লাগবে।

 

ঘরে বসে আলসেমির জন্য শরীর চর্চা করা হয়ে ওঠেনা।তাই মনের মাঝে আগাছাও পরিষ্কার করা হয়না।করোনায় প্রতিদিনই আমাদের ঘর পরিস্কার করতে হয়,জীবাণুমুক্ত করতে হয়।ক্লিনিং এর কাজ করা একটা meditation এর মতো।মাকে এই কাজে সাহায্য করুন।দেখবেন মনটা ভালো হয়ে যাবে।আর ক্যালরি ক্ষয় ও হবে সেইসাথে।

 

বাবা-মার সাথে বসে টিভি দেখলেও মন ভালো হয়ে যায়। উত্তম কুমার-সুচিত্রা, শাবানা আলমগীর জুটির সিনেমা দেখুন। দেখবেন তাঁরা পুরনো স্মৃতি উন্মোচন করবেন।তৈরি হবে এক অসাধারণ মুহূর্তের।

 

এবার আসুন প্রতিভার বিকাশ কিভাবে করবেন। হয়তো আপনি নিজেকে মূল্যহীন ভাবেন। তবে জেনে রাখুন সবাই কিছু না কিছু পারে, তাই আপনার না পারাটা অবশ্যই একটি গুণ। তাই ই আপনি কি পারেন তা খুঁজে বের করুন। চোখবন্ধ করে লম্বা দম নিন এবং ছাড়ুন।বারবার তা করুন।এরপর ঠিক যা করতে মন চাবে তাই করুন। বই পড়ুন বেশি বেশি। যখন যেটা করতে মন চাবে করুন।কিছুদিন পর বুঝতে পারবেন আপনি কি করতে পারেন।

 

সমস্যা আমাদের জীবনে সবারই আছে। যে সমস্যায় পড়ে কেবল সেই বোঝে। তাই সমস্যার কাছে মাথা নত না করে তার সমাধান বের করা। যত বেশি পারবেন,চিন্তা করবেন,ভাববেন। একটা সময় আপনি অবশ্যই depression থেকে বের হতে পারবেন।

 

Sanjida Polin Maria
University Student
GB119

LEAVE REPLY

Your email address will not be published.